issue_cover
x

z লাল ঠোঁটের বাদুড় মাছ

গ্যালাপাগোস দ্বীপের কাছে এই অদ্ভুতদর্শন মাছটিকে দেখা যায়। দেখতে ঠিক বাদুড়ের মতো, উপরন্তু ঠোঁটটি টুকটুকে লাল। কিন্তু মাছ হলেও এটি কিন্তু সাঁতার কাটতে পারে না। এদের জন্মের পিছনে যেন থমকে রয়েছে সৃষ্টিকর্তার এক বিচিত্র ইচ্ছে। তাই মাছ হয়েও মাছের ধর্ম থেকে বঞ্চিত। তাই বলে এদের খুব অক্ষম বলে মোটেও ভাবা যাবে না। এদের শক্তপোক্ত পাখনার সাহায্যে এরা সমুদ্রের তলায় দিব্যি হেঁটে চলে বেড়ায়। ডুবুরিদের কাছে সমুদ্রের তলায় রঙে ঠাসা প্রবালরাজ্যে এই মাছের হেঁটে বেড়ানো একটা দেখার মতো দৃশ্য।

প্যাটাগোনিয়ান মারা

ঠিক খরগোশ বলতে আমরা যা বুঝি, এই দক্ষিণ আমেরিকার খরগোশটি কিন্তু সেই দলের সদস্য হয়েও বেশ আলাদা বৈশিষ্ট্য ধারণ করে। লাল চোখো-খুদে পা বেলজিয়ান খরগোশেরা তো একে দেখলে জাতভাই বলে পাত্তাই দেবে না। একে তো লম্বা-লম্বা পা, তার উপর আবার বেশ ঘন কৃষ্ণকায় গায়ের রং। সাধারণ খরগোশের মতো মোটেও নিরীহ নয় এদের চাউনি বা হাবভাবও। সে যাই হোক, প্রকৃতির সন্তানটির আপন মনে খেলাধুলোর দিন এবার শেষের দিকে। এদের চামড়া কৃষ্ণকায় হলে কী হবে, এ দিয়ে তৈরি বিছানার মখমলী নরম চাদর বা কম্বলের ভালই বাজার। সে কারণেই আর্জেন্তিনার বিস্তীর্ণ এলাকায় ঝোপেঝাড়ে লুকিয়ে থাকা প্রাণীটিকে চোরাচালানকারীরা ঠিক খুঁজেপেতে বের করে জবাই করেছে। আর এরাও কমতে-কমতে এখন বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীর তালিকায় ঢুকে পড়েছে।